শফিউল আলম প্রধান – Shafiul Alam Prodhan

শফিউল আলম প্রধান ছিলেন পঞ্চগড়ে জন্মগ্রহণকারী একজন বরেণ্য রাজনীতিবিদ। জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা)’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান ছিলেন আধিপত্যবাদ বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম স্থপতি, স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র রক্ষা আন্দোলনের অন্যতম মহানায়ক এবং ২০ দলীয় জোটের রূপকার। তিনি ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

শফিউল আলম প্রধান এদেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের একজন সিংহ পুরুষ। তিনি ৬৯’র গণঅভ্যূত্থান, ৭১’র স্বাধীনতা সংগ্রাম, ৯০’র স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনসহ প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে রাজপথে লড়াকু ভূমিকা পালন করেন। শফিউল আলম প্রধান গণমানুষের বিভিন্ন অধিকার আদায়ের দাবিতে, দেশের ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসী জাতীয়তাবাদী ধারার রাজনীতি বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে গেছেন।

শফিউল আলম প্রধান ১৯৪৯ সালের ১লা জানুয়ারি পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার টোকরাভাষা গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মৌলভী গমির উদ্দিন প্রধান পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদের স্পিকার ছিলেন। বাবা মুসলিম লীগের রাজনীতি করায় প্রধান পরিবারে রাজনৈতিক আবহে বেড়ে উঠেন।

শফিউল আলম প্রধানের সহধর্মিনীর নাম রেহানা প্রধান (১৯৫৩-২০১৮), মেয়ে ব্যারিস্টার তাহমিয়া প্রধান, ছেলে রাশেদ প্রধান। রেহানা প্রধান পেশায় একজন অধ্যাপিকা ছিলেন এবং তিনি জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির সহ-সভাপতি ছিলেন।

শফিউল আলম প্রধান পুরান ঢাকার বোরহানউদ্দিন কলেজে পড়ার সময় ছাত্র রাজনীতিতে জড়িয়ে পরেন। তিনি ১৯৬৮ সালে শেখ বোরহানউদ্দিন কলেজের নির্বাচিত জিএস, তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগে পড়া অবস্থায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক ছিলেন এবং ১৯৭০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ হলের ভিপি নির্বাচিত হন। স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু হলে শফিউল আলম প্রধান ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের নেতা হিসেবে দায়িত্ব নিয়ে দিনাজপুরে ১৯৭১ সালের ২৩ মার্চ প্রথম বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন। শফিউল আলম প্রধান স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে ছাত্রলীগ দুই ভাগে বিভক্ত হলে শেখ ফজলুল হক মনির অনুসারী হিসেবে ১৯৭২-৭৩ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং ১৯৭৪ সালে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন

১৯৭৪ সালের ৩০ মার্চ ছাত্রলীগের পক্ষে ক্ষমতাসীন সরকারের মন্ত্রী-এমপিদের দুর্নীতির তালিকা (শ্বেতপত্র) প্রকাশ করে গ্রেফতার হয়ে কারাবরণ করেন। ১৯৭৪ সালের ৪ এপ্রিল ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মহসিন হলের সাত হত্যা মামলায় তাকে প্রধান আসামী করা হয়। যদিও তার সর্মথকেরা এটিকে তৎকালীন সরকারের ষড়যন্ত্র বলে দাবি করে। বিচারে শফিউল আলম প্রধানের মৃত্যুদণ্ড হয়। ১৯৭৫ সালে রাজনৈতিক পট পরিবর্তনের পর জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এলে ১৯৭৮ সালে তিনি মুক্তি পান।

শফিউল আলম প্রধান ১৯৮০ সালের ৬ এপ্রিল জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা) গঠন করেন। জাগপার ব্যানারে তিনি দেশ মাটি ও মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়েন, দেশের প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তিনি ছিলেন রাজপথে এবং দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব, তিস্তার পানি, টিপাইমুখে বাঁধের বিরোধিতা, সীমান্ত হত্যা ইত্যাদি ইস্যু নিয়ে বছরের পর বছর আন্দোলন করেন। তিনি ভারতীয় আগ্রাসনবিরোধী এবং দেশের প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে রাজপথের আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। প্রতিটি সরকারের শাসনামলেই শফিউল আলম প্রধানকে কারাগারে যেতে হয়েছে এবং তিনি জীবদ্দশায় সর্বমোট ২৭ বছর কারাবরণে ছিলেন।

শফিউল আলম প্রধান ২০০৮ সালের সাধারণ নির্বাচনে প্রধান চারদলীয় জোটের প্রার্থী হয়ে দিনাজপুর সদর আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন।

(১৯৭৪ সালে) সরকারের মন্ত্রী-এমপিদের দুর্নীতির তালিকা (শ্বেতপত্র) বের না করলে হয়তো আজ ইতিহাস অন্যরকম হতো। তৎকালীন সময়ে যে সমস্ত ব্যক্তিরা শফিউল আলম প্রধানের কর্মী ও শিষ্য ছিল তাদের মধ্যে অনেকেই মন্ত্রী, এম.পি. সহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ জায়গা দখল করে নিয়েছেন। সেই তালিকায় আওয়ামী লীগে নেতা, সাধারণ সম্পাদক ও মন্ত্রী  সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এবং ওয়ায়দুল কাদের অন্যতম। দীর্ঘজীবন রাজনীতি করা জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান মন্ত্রী এমপি না হলেও তিনি বেঁচে থাকবেন এদেশের প্রতিবাদী মানুষের শ্লোগানে।

শফিউল আলম প্রধান দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সার, হৃদরোগ সহ নানা রোগে ভুগেছিলেন এবং কয়েকবার হৃদরোগে আক্রান্ত হন। তিনি ২০১৭ সালের ২১শে মে ঢাকার আসাদ গেটের বাসভবনে ভোর সাড়ে ৬টায় মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর মৃত্যুর পরে ঢাকা ইকবাল রোডে, দিনাজপুর ও পঞ্চগড়ে এবং সর্বশেষ জাতীয় মসজিদ বাইতুল মোকাররমে হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতির মধ্য দিয়ে চোখের জলে প্রিয় নেতাকে বিদায় জানানো হয়। শফিউল আলম প্রধানকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয়।

 


তথ্যসূত্রঃ chobigolpo.com.bd | S. A. Prodhan Foundation | jagpa.org | মোঃ মঞ্জুর হোসেন ঈসা
Last updated: 20 November 2023

Share:

Facebook
Twitter
Pinterest
LinkedIn

Photo

শফিউল আলম প্রধান
(১৯৪৯ - ২০১৭)

  • জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা)’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি
  • ১৯৭১ সালের ২৩ মার্চ প্রথম বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলনকারী
  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সলিমুল্লাহ হলের ভিপি
  • বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক
  • কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক
  • জীবদ্দশায় সর্বমোট ২৭ বছর কারাবরণ